OLD AGE SOLUTIONS

Portal on Technology Initiative for Disabled and Elderly
An Initiative of Ministry of Science & Technology (Govt. of India)
Brought to you by All India Institute of Medical Sciences

শারীরিক স্বাস্থ্য

মানসিক স্বাস্থ্য

পুষ্টি

ভাল শ্রবণ শক্তি

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শ্রবণশক্তি কমে যায়। যতক্ষণ না বয়স প্রায় ৬০ হচ্ছে ততদিন নজরে পড়ে না হয়তো। ৬০ বছরের উর্ধে প্রায় ৬০% ব্যক্তি কম শোনেন বয়সের কারণে। নীচে একটি চেকলিষ্ট দেওয়া হল যাতে আপনার শ্রবণশক্তি বুঝতে সুবিধা হয়।

  • আপনার পরিবারবর্গ কি জোরে টিভি/ রেডিও চলছে বলে কি অভিযোগ করে?
  • আপনি কি মনে করেন যে যদি লোকজন একটু স্পষ্টভাবে জোরে কথা বলত তাহলে ভাল হয়?
  • আপনার নাম ধরে ডাকা হলে কি কখনো শুনতে পান নি? আপনি অন্যলোকে কি বলছে তা অনেক সময় কি বুঝতে পারেন না?
  • আপনি কি অন্যকে কি বলল তা আরেকবার বলতে বলেন?
  • সামাজিক মিলনস্থলে, উপাসনাস্থলে বা যেখানে পিছনে অনেক আওয়াজ সেখানে কথা শুনতে অসুবিধা হয় কি?
  • আপনার টেলিফোন বা দরজার ঘনটি শুনতে অসুবিধা হয়?
  • আপনি কি স্বাভাবিকের থেকে বেশী জোরে টিভি বা রেডিওর শব্দ করে দেন?

উপরোক্ত প্রশ্নাবলীর উত্তর যদি 'হ্যাঁ' হয় তাহলে আপনার ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া উচিত আপনার শ্রবণশক্তির বিষয়ে। এর অনেকরকম কারণ হতে পারে, তাই ডাক্তার আপনাকে পরীক্ষা করে দেখবেন এবং কিছু প্রশ্ন করবেন সমস্যা বুঝতে। উদাহরণ স্বরূপ, আপনার কানে ময়লা হতে পারে, বা কানে সংক্রমণ হতে পারে যার চিকিৎসা দরকার। কিন্তু যদি আপনার ডাক্তার যদি আপনার শ্রবণ হ্রাসের কোন বিশেষ কারণ খুঁজে না পান তাহলে হয়ত নাক, কান ও গলা (নাকাগ) বিশেষজ্ঞের কাছে আপনাকে পাঠাতে পারেন। যদি শুধুমাত্র বয়সের কারণে আপনার শ্রবণ শক্তি কমে যায় তাহলে বিশেষজ্ঞ আপনাকে জানাবেন যে এর কোন চিকিৎসা নেই এওং হয়তো আপনাকে শ্রবণ যন্ত্র লাগাতে বলবেন। ব্যবহার করুন এগুলি খুবই সহায়ক হয়।


শ্রবণ যন্ত্র

একটি শ্রবণযন্ত্র শব্দকে বাড়িয়ে দেয়। কতটা বাড়ানো দরকার তা নির্ভর করে আপনার কতটা শ্রবণশক্তির হ্রাস হয়েছে তার উপর। শ্রবণযন্ত্র সব শব্দই বাড়িয়ে দেবে কিন্তু বিশেষ করে কথার আওয়াজ বাড়াবার জন্যই তৈরী হয়েছে। শব্দ ভিন্ন ভিন্ন পিচ বা কম্পাঙ্কের হয়। শ্রবণ যন্ত্র বিভিন্ন পিচের শব্দকে বিভিন্ন পরিমাণে বাড়ায় কারণ শ্রবণ হ্রাস হলে সাধারণত কিছু কম্পাঙ্কের শব্দ আপনি বেশী শুনবেন। বয়স্ক ব্যক্তিরা উচ্চ কম্পাংকের শব্দ শুনতে কষ্ট অনুভব করেন সাধারণত। আপনি হয়তো কথার শব্ধ শুনতে পারবেন কিন্তু কি বলছেন তা বুঝতে পারবেন না।

বিভিন্ন ধরণের শ্রবণ যন্ত্র আছে প্রয়োজন অনুযায়ী। এগুলি বাণিজ্যিক ভাবে পাওয়া যায়। অনেকগুলি ভিন্ন ভিন্ন শ্রবণযন্ত্র থেকে বেছে নিতে পারা যায়, যদিও সবগুলিই আপনার জন্য ঠিক নাও হতে পারে। কিছু ব্যক্তি কানে লাগানো শ্রবণযন্ত্র অনেক বেশী সুবিধাজনক মনে কাড়েন কারণ কানে ঠিক ঠাক লেগে যায়। কিন্তু গুরুতর শ্রবণহানীর ক্ষেত্রে এই ধরণের শ্রবণযন্ত্র কাজ করবে না। শরীরে লাগানো যন্ত্র বুকে ছোট মতো লাগানো থাকে এবং তার কানে লাগাবার ইয়ারফোন থাকে। এগুলি অন্যগুলির তুলনায় ব্যবহারে অসুবিধাজনক কিন্তু এর আকারের জন্য এটি সঙ্গে নিয়ে চলতে চালাতে সুবিধা এবং শব্দ অনেক বেশী বাড়ায়।

শ্রবণ যন্ত্র আপনার শ্রবণক্ষমতা স্বাভাবিক করবে না বা আপনার শ্রবণহানী সারাবে না। এটি শুধুমাত্র শুনতে সাহায্য করবে- প্রথমবার ব্যবহারের সময়, সব শব্দ খুব জোর লাগবে। বেশ কিছু মাস লাগতে পারে এর সঙ্গে মানিয়ে নিতে। আপনার শুরুর দিকে অসুবিধা হলে যার কাছ থেকে শ্রবণযন্ত্রটি নিয়েছেন তার কাছে যান পরামর্শের জন্য।

আপনার শ্রবণ যন্ত্র কিছু বিশেষ অবস্থায় সহায়ক হবে। তা বুঝতে আপনাকে পরীক্ষা করতে হবে। মনে রাখবেন যে শ্রবণযন্ত্র শান্ত পরিবেশে এক বা দুজনের সঙ্গে কথা বলার সময় অনেক বেশী কার্যকরী হয়। পিছনের শব্দ, যেমন গান বা কথাবার্তা আপনার শ্রবণের পথে বাধার সৃষ্টি করে। এ সত্ত্বেও, আপনার শ্রবণ যন্ত্র ব্যস্ত, কোলাহলমুখর স্থানেও কার্যকরী হতে পারে।

  Copyright 2015-AIIMS. All Rights reserved Visitor No. - Website Hit Counter Powered by VMC Management Consulting Pvt. Ltd.